সর্বশেষ সংবাদ

এমআইএসটি-তে “Energy Scenario and Prospect of Petroleum and Mining Engineering in Bangladesh” শীর্ষক সেমিনারঅনুষ্ঠিত

 

ঢাকা, ২৯ জুলাই ২০১৭:- বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব নসরুল হামিদ, এমপি বলেছেন, তরুন প্রকৌশলীদের উদ্ভাবিত শক্তিই বাংলাদেশের জ্বালানী শক্তির ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটাবে। প্রতিমন্ত্রী আজ শনিবার (২৯-৭-২০১৭) মিরপুর সেনানিবাসস্থ মিলিটারী ইনষ্টিটিউট অব সাই›স এন্ড টেকনোলজী (এমআইএসটি)এর পেট্রোলিয়াম ও মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত “Energy Scenario and Prospect of Petroleum and Mining Engineering in Bangladesh’’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

প্রধান অতিথি আরো বলেন, অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক, সামাজিক তথা সার্বিক উন্নয়নের পিছনে জ্বালানী শক্তির অবদান অপরিহার্য। বাংলাদেশ সরকার ২০২১ সালের মধ্যে ২৪,০০০ মেগা ওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। উক্ত লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে জ্বালানী শক্তি ও খনিজ সম্পদের ব্যবহার উলেখ্যযোগ্য ভূমিকা রাখবে। বাংলাদেশ সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বঙ্গোপসাগর এলাকায় নতুন সমুদ্র সীমানা নির্ধারণ করা হয়েছে। উক্ত এলাকায় প্রাকৃতিক গ্যাসসহ নানা খনিজ সম্পদ থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। আমাদের পেট্রোলিয়াম ও মাইনিং প্রকৌশলীগণ তাঁদের যথাযথ জ্ঞান ও মেধা প্রয়োগের মাধ্যমে উক্ত সম্পদকে জ্বালানী খাতে ব্যবহার করতে পারবেন বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উক্ত সেমিনারে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-তত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ডঃ বদরুল ইমাম এবং বাংলাদেশ সরকারের বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন পাওয়ার সেল অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে এমআইএসটি এর কমান্ড্যান্ট মেজর জেনারেল মো: আবুল খায়ের, এনডিসি, পিইঞ্জি:,শিক্ষাবিদ, পেশাজীবি, জ¦ালানী উদ্যোক্তা এবং উর্ধ্বতন সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।