সর্বশেষ সংবাদ

বঙ্গোপসাগরে নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারে ভারতীয় জলসীমানায় উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী জাহাজ স্বাধীনতা ও প্রত্যয়

ঢাকা ২১ আগস্ট ২০১৬ঃ      বঙ্গোপসাগরে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে গত বুধবার নিখোঁজ হওয়া আরও ৩ টি ফিশিং ট্রলার মা গঙ্গা, মা কুসুম ও আব্দুল্লাহ এর একটিকে ডুবন্ত ও দুইটিকে ভাসমান অবস্থায় খুঁজে পেয়েছে ভারতীয় টহল বিমান। এসময় বোটে থাকা জেলেরা হাত নেড়ে উদ্ধারের জন্য সাহায্য প্রার্থনা করছিল। এই তথ্য ভারতীয় দুতাবাসের মাধ্যমে বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে জানানো হলে তৎক্ষনাৎ  ট্রলার ৩ টি উদ্ধারের জন্য নৌবাহিনী স্বাধীনতা ও প্রত্যয় জাহাজকে প্রেরণ করে। জাহাজ দুটি আজ রবিবার (২১-০৮-২০১৬) সকালে বাংলাদেশের সমুদ্রসীমা অতিক্রম করে ভারতীয় সীমানায় প্রবেশ করে ব্যাপক উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। বোট ৩ টিতে আনুমানিক ৩৫-৪০ জন জেলে আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এর আগে গত শুক্রবার দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় বাংলাদেশের আরও ৩টি ফিশিং ট্রলার আল্লাহর দান, ফরহাদ ও নাঈম ইঞ্জিন বিকল হয়ে ভারতীয় সীমানায় ঢুকে পড়ে। ভারতীয় কোস্ট গার্ড এদের মধ্যে আল্লাহর দান ও ফরহাদকে ৩১ জন জেলেসহ তাদের ফ্রাজেরগঞ্জে ঘাঁটিতে নিয়ে যায় এবং  নাঈম নামে অপর একটি বাংলাদেশী ফিশিং ট্রলারকে ১৮ জন জেলেসহ উদ্ধার করে যা বর্তমানে ভারতীয় কুলতলী পুলিশ স্টেশনের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। বোট ৩টিকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় মেরামতের কাজ চলছে। মেরামত শেষে উদ্ধারকৃত বোট ও জেলেদেরকে নিয়ে নৌবাহিনী জাহাজ ‘স্বাধীনতা’ ও ‘প্রত্যয়’ শীঘ্রই বাংলাদেশে ফিরবে বলে আশা করা যায়।

দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে সাগর উত্তাল থাকায় গত বুধবার সাগরে মাছ ধরতে যাওয়া বেশ কিছু বাংলাদেশি ফিশিং ট্রলার ঝড়ের কবলে পড়ে এবং শতাধিক জেলে নিখোঁজ হয়। ঘটনার পরপরই উদ্ধার অভিযান শুরু করে বাংলাদেশ নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড ও ভারতীয় কোস্টগার্ড জাহাজ। বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ৫টি জাহাজ গভীর সমুদ্রে, কুয়াকাটার, হিরণপয়েন্ট ও তৎসংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় উদ্ধার তৎপরতা পরিচালনা করছে। এছাড়াও নৌবাহিনীর একটি টহল বিমান ঘূর্ণিঝড় কবলিত উপকূলীয় এলাকায় নিখোঁজ জেলেদের সন্ধানে সার্বক্ষনিক টহল প্রদান করছে।