সর্বশেষ সংবাদ

‘সেরা সাঁতারুর খোঁজে বাংলাদেশ’ বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ঢাকা, ২৫ মে ২০১৭ঃ  প্রথমবারের মতো দেশব্যাপী অনুষ্ঠিত প্রতিভাবান সাঁতারু অন্বেষণ প্রতিযোগিতা ‘সেরা সাঁতারুর খোঁজে বাংলাদেশ’ এর চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা থেকে নির্বাচিত হলো সেরা ৬০ জন সাঁতারু। আজ বৃহস্পতিবার (২৫-০৫-২০১৭) নৌবাহিনী সদর দপ্তর সুইমিং পুল কমপ্লেক্সে প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত থেকে সাঁতার প্রতিযোগিতা উপভোগ করেন এবং বিজয়ী সাঁতারুদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। এর আগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নৌ সদরে উপস্থিত হলে তাকে স্বাগত জানান সুইমিং ফেডারেশনের সভাপতি ও নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ।

প্রতিযোগিতার সমাপনী দিনে ১১-১২ বছর বয়সী নারী সাঁতারুদের মধ্যে প্রমি, কিশোরগঞ্জ ও পুরুষ সাঁতারুদের মধ্যে আমিরুল, কিশোরগঞ্জ প্রথম স্থান অধিকার করে। এছাড়া ১৩-১৫ বছর বয়সী নারী সাঁতারুদের মধ্যে সুম্মা, ঝিনাইদহ ও পুরুষ সাঁতারুদের মধ্যে জহিরুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ প্রথম স্থান অধিকার করে, ১৫-১৭ বছর বয়সী নারী সাঁতাদের মধ্যে মুক্তি, ঢাকা ও পুরুষ সাঁতারুদের মধ্যে হাকিম মিয়া, কিশোরগঞ্জ প্রথম স্থান অধিকার করে এবং ১৮ থেকে তদুর্ধ বয়সী নারী সাঁতারুদের মধ্যে খাদিজা, কুষ্টিয়া ও পুরুষ সাঁতারুদের মধ্যে আল আমিন, কুষ্টিয়া প্রথম স্থান অধিকার করে। এছাড়া শারীরিকভাবে সীমাবদ্ধ সাঁতারুদের মধ্যে পাবনার খুশী এবং রোহানকে বিশেষভাবে পুরস্কৃত করা হয়।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর ভাষণে বলেন, বাংলাদেশ একটি নদীমাতৃক দেশ। এদেশে সাঁতার একটি অন্যতম জনপ্রিয় খেলা। দেশের ঐতিহ্যবাহী এই খেলার প্রসার এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের সাঁতারুদের প্রতিভাকে বিকশিত করতে সেরা সাঁতারুর খোঁজে বাংলাদেশ প্রতিযোগিতাটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। তিনি আরও বলেন, এই প্রতিভাবান সাঁতারুগণ ভবিষ্যতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে পদক ছিনিয়ে এনে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করবে। তিনি দীর্ঘ এক বছরব্যাপী বিভিন্ন ধাপে বাছাই পর্বের মাধ্যমে সেরা সাঁতারুদের খুঁজে বের করার উদ্যোগকে বাংলাদেশের খেলাধুলার ইতিহাসে এক যুগান্তকারী ঘটনা বলে উল্লেখ করেন। সেই সাথে এই কর্মসূচীর সাথে সম্পৃক্ত সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। (মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের কপি সংযুক্ত ……………………)

উল্লেখ্য, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা প্রতিভাবান সাঁতারুদের খুঁজে বের করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের উদ্যোগে ও বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সহযোগিতায় গত ১৯ মে ২০১৬ ‘সেরা সাঁতারুর খোঁজে বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতা শুরু হয়। প্রথমপর্বে সমগ্র বাংলাদেশের ৬৪ টি জেলা ও  ৪৮৯টি উপজেলা হতে প্রায় ২৫ হাজার সাঁতারু অংশগ্রহণ করে। এদের মধ্য থেকে দ্বিতীয় পর্বের জন্য ১২৭৫ জন নির্বাচিত হয়। পরবর্তীতে এই ১২৭৫ জনকে ঢাকায় এনে পুনরায় তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ১৬০ জনকে নির্বাচিত করা হয়। শেষ পর্বে বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের তত্ত্বাবধানে এই সাঁতারুদের ৩ মাস নিবিড় প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। এদের মধ্য থেকে নির্বাচিত হয় সেরা ৬০ জন সাঁতারু। এই কৃতী সাঁতারুদের জন্য লেখাপড়াসহ দেশে-বিদেশে ৩ বছরব্যাপী প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। এই সেরা সাঁতারুরাই দেশ ও দেশের বাইরে আন্তর্জাতিক সাঁতার অঙ্গনে প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে দেশের জন্য সুনাম বয়ে আনবে বলে আশা করা যায়।

‘সেরা সাঁতারুর খোঁজে বাংলাদেশ’ এর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে মন্ত্রী পরিষদের সদস্যবৃন্দ, সেনা ও বিমান বাহিনী প্রধানগণ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, সামরিক ও বেসামরিক উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন জেলার জেলা প্রশাসকসহ গণমাধ্যমের সাংবাদিকবৃন্দ এবং বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।